চাল বিতরণ নিয়ে তুলকালাম, ইউপি সদস্যসহ আহত ১০

0
IQSHA IT

বরগুনা প্রতিনিধি:- বরগুনা সদর ইউনিয়নে চাল বিতরণ নিয়ে সংঘর্ষে ইউপি সদস্যসহ অন্তত ১০ ব্যক্তি আহত হয়েছেন। বৃহষ্পতিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটা দিকে সদর ইউপি কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মনির হোসেন বলেন, ঈদের জন্য নির্ধারিত বিশেষ বরাদ্দের ১৫ কেজি করে চাল বিতরণের জন্য বৃহষ্পতিবার বিকেলে কার্ডধারীদের আসতে বলা হয়। সবাই উপস্থিত হওয়ার পর ৩০ কেজির বস্তা ভেঙে বালতি দিয়ে মেপে চাল বিতরণ শুরু করেণ ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম আহাদ সোহাগ। এতে ইউপি সদস্যরা আপত্তি তুলে দুটি কার্ডে এক বস্তা করে চাল বিতরণের অনুরোধ করেন। কিন্ত এতে আপত্তি তোলেন চেয়ারম্যান। এ নিয়ে সদস্য অরুণের সাথে তর্ক বাঁধে এবং এক পর্যায়ে ইউপি সদস্যকে অরুণকে চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীরা মারধর শুরু করে। এসময় জনগণ ও চেয়ানম্যানের লোকজনের সাথে সংঘর্ষ বাঁধে। বিক্ষুব্ধ জনতার তোপের মুখে চেয়ারম্যানকে কার্যালয়ে ঢুকে অবস্থান নিলে তাঁকে অবরুদ্ধ করে কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায়। এ ঘটনায় ইউপি সদস্য অরুণসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছেন। আহতেদের মধ্যে অরুণকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয়। বর্তমানে ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনিসুর রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাত আটটার দিকে পুলিশের সহায়তায় অবরুদ্ধ চেয়ারম্যান গোলাম আহাদ সোহাগকে মুক্ত করে আনেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত ইউপি সদস্য অরুণ বলেন, চেয়ারম্যান চাল আত্মসাতের জন্য বালতি দিয়ে মেপে বিতরণ করছিলেন। এর প্রতিবাদ করায় তার ক্যাডাররা আমাদের উপর হামলা করেছে। চেয়ারম্যানের দূর্ণীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে আমরা ৭জন ইউপি সদস্য অবস্থান নিয়ে দুদকসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছি। আমরা চেয়ারম্যানের দূর্ণীতির বিচার চাই এবং আমিসহ জনগণের উপর হামলার বিচার চাই।

চেয়ারম্যান গোলাম আহাদ সোহাগ অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা ইউপি সদস্যদের দোষারোপ করে বলেন, পরিকল্পিতভাবে আমার উপর হামলা করে কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়েছে। আমি চাল মাপে কম দেইনি, মেম্বররা পাবলিককে ভুল বুঝিয়ে ক্ষেপিয়ে তুলে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির হোসেন মাহমুদ বলেন, খবর পেয়ে আমিসহ পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনি। কোনো পক্ষ থানায় অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউএনও) আনিসুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানের উভয় পক্ষের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি সামাল দেয়া হয়েছে। আগামীকাল শুক্রবার আমার উপস্থিতিতে থেকে চাল বিতরণ হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!