ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রাসেলের বাঁশিতে মুগ্ধ ভোটার (ভিডিও)

0
IQSHA IT

বাঁশের বাঁশির সূরে পল্লী বধুর প্রান কেড়ে নেয় কোনো এক রাখাল। রাত বিরাতে সূরের মুর্ছনায় গৃহত্যাগী এই বাঁশির সূর নিয়ে রয়েছে নানা গল্প, সিনেমা জুড়েও রয়েছে বাঁশের বাঁশির প্রেম। তবে এবার বাঁশির সূর কেড়েছে ভোটারদেরও প্রান। আর যিনি সূরের মূর্ছনায় মুগ্ধ করে মন জয় করে ভোট আদায় করে চলেছেন।

তিনি বরগুনা সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ইমরান হোসেন রাসেল। জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেলের বাঁশি বাঁজানোর এমন গুন অনেকের অজানা থাকলেও সম্প্রতি বিষয়টি ব্যাপক আলোচনায় এসছে। ভোটাররা মুগ্ধ হয়ে কেউ কেউ উল্টো তাঁকেই সম্মাননা পুরষ্কার স্বরুপ টাকাও দিয়েছেন।

সম্প্রতি বেশ কয়েকটি ধর্মীয় অনুষ্ঠাস ওরসে প্রচারণায় অংশ নিতে যান রাসেল। এসময় তিনি মঞ্চে বাঁশের বাঁশির সূরে মুগ্ধ করেন আগতদের। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে বাঁশীর সূরের লাইভস্ট্রিম ভিডিও। মুহুর্তেই মানুষ জানতে পারে রাসেলের এমন অসাধারণ একটি গুনের বিষয়ে। সবশেষ সোনাখালী এলাকায় ওরস মুবারক অনুষ্ঠানে তিনি বাঁশিতে সূর তোলেন। সূরের মূর্ছনায় পিনপতন নিরব হয়ে যায় গোটা এলাকা। মন কেড়ে নেয়া এমন সূরে জয় করে নেন তিনি ভোটারদের ভোট।

ইমরান হোসেন রাসেল গত বছর নির্বাচনে একই পদে প্রতিদ্বন্দিতায় জামায়াতের সেক্রেটারি মাও.মোহেব্বুল্লার কাছে সামান্য ভোটে হেরে যান। বরগুনার সম্ভ্রান্ত ফরায়েজী পরিবারের সদস্য হিসেবে রাসেল ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। পরবর্তিতে তিনি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। মিশুক ও অমায়িক ভদ্রতায় তাঁর বেশ সুখ্যাতি রয়েছে।

ইমরান হোসেন রাসেল বলেন, পারিবারিকভাবেই রাজনৈতিক মননে গড়ে উঠেছি। জনগণের সেবায় নিয়োজিত থাকতে আমি ভোটে দাড়িয়েছি।নির্বাচিত হলে মানুষদের সেবায় সর্বাত্মক প্রচেষ্টা থাকবে ইনশাআল্লাহ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!