বেতাগীতে চিকিৎসকের অবহেলায় যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ, ক্লিনিকে হামলা ,চিকিৎসককে মারধর

0
IQSHA IT

বেতাগী সংবাদদাতা ঃ বরগুনার বেগাতীতে চিকিৎসকের অবহলোর রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে হামলা চালিয়েছে রোগীর স্বজনরা। এসময় তারা ওই ক্লিনিকের একজন চিকিৎসককে মারধর করেছে বলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের অভিযোগ। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত আটটার দিকে বেতাগী সদর ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকার বাসিন্দা মোতালেব মিয়ার ছেলে সুমন (৩০) গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহননের চেষ্টা করে। টের পেয়ে স¦জনরা তাকে উদ্ধার করে দ্রুত স্থানীয় ডক্টর্স ক্লিনিকে নিয়ে যায়। এসময় চিকিৎসক মাহবুব অন্য এক রোগীর অস্ত্রপচার করছিলেন। পরে চিকিৎসক এসে পরীক্ষা নীরিক্ষা করে মৃত ঘোষণা করেন। রোগীকে মৃত ঘোষণার পরপরই স্বজনরা উত্তেজিত দেরীতে আসার কারণ জানতে চান এবং উত্তেজিত হয়ে হয়ে চিকিৎস ককে গালাগাল শুরু করেন। এর কিছুক্ষন পর রোগীর স্বজন এলাকাবাসী মিলে অন্তত ৩০ জনের সংঘবদ্ধ দল ক্লিনিকে হামলা ও ভাঙচুর চালায় এবং চিকিৎসক মাহবুকে মারধর করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয় ।
সুমনের বাবা আবদুল মোতালেব অভিযোগ করে বলেন, আমার ছেলেকে দেখতে আসেনি ডাক্তার। ডাক্তার দ্রুত আসলে হয়ত আমার ছেলেকে বাঁচানো সম্ভব হত। তিনি ইচ্ছে করেই দেরীতে এসছেন। একজন চিকিৎসক এভাবে আচরণ করতে পারেনা। এর আগেও তিনি একজন রোগীকে অপঃচিকিৎসা দিয়েছেন। ডায়াবেটিকসের কথা বলে ওষুধ দিয়েছেন, অথচ পরে অন্য হাসপতালে পরীক্ষা করে দেখা যায় ওই রোগীর ডায়াবেটিকস ছিলনা।

ক্লিনিকের শেয়ার ও চিকিৎসক ডাক্তার মাহবুব হোসেন বলেন, আমি তখন অন্য এক রোগীর অস্ত্রপচারের কাজে ব্যস্ত ছিলাম। এ অবস্থায় আমার দ্রুত আসার কোনো উপায় ছিলনা। তারপরও আমি যত দ্রুত সম্ভব ওই রোগীকে দেখেছি। কিন্ত রোগী ক্লিনিকে আনার আগেই মারা গেছে।

বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, সুমন মাদকাসক্ত ছিল। তাঁর বিরুদ্ধে বেতাগী থানায় মামলা রয়েছে। এ ঘটনার খবর শোনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!